ঠাকুরগাঁয়ের সেই জনপ্রিয় ডিসি আওয়াল যশোরে

টিবিটি সারাদেশঃঠাকুরগাঁয়ের সেই জেলা প্রশাসক আবদুল আওয়াল এখন যশোরে। গত ১১ মার্চ তিনি যশোরের ৩১তম জেলা প্রশাসক হিসেবে যোগদান করেছেন। আবদুল আওয়াল ঠাকুরগাঁয়ের জনপ্রিয় জেলা প্রশাসক ছিলেন।

তার বদলির আদেশ ঠেকাতে ঠাকুরগাঁয়ে সড়ক অবরোধ ও সাধারণ মানুষের কান্নাকাটির ঘটনা ঘটে। সরকারি আদেশে অবশেষে আবদুল আওয়াল যশোরের জেলা প্রশাসক হিসেবে যোগদান করেছেন। যোগদানের তিন দিন পর বুধবার তিনি যশোরের সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন।

জেলা প্রশাসক আবদুল আওয়াল বলেন, সততার সঙ্গে কাজ করব। পারস্পরিক শ্রদ্ধাবোধ রেখেই কাজ করব। এজন্য কাউকে এড়িয়ে চলার কিছু নেই। যশোরের উন্নয়নে সবার সহযোগিতা নিয়ে কাজ করব। ভৈবর নদ খননে অবৈধ দখলদার উচ্ছেদে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়া হবে। রাস্তার সমস্যা সমাধানে সংশ্লিষ্ট দফতরকে অবহিত করা হবে।

ডিসির বিদায় বেলায় কান্নার রোল

তিনি বলেন, ‘নানান রঙের ফুলের মেলা, খেজুর গুড়ের যশোর জেলা’ ব্র্যান্ডিং নিয়ে কাজ করব। এজন্য আপনাদের সহযোগিতায় প্রয়োজন। অর্থনৈতিক সুযোগ নেয়ার জন্য কোনো মেলার অনুমতি দেব না। পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীর কল্যাণে কাজ করতে চাই।

আবদুল আওয়াল বলেন, সময়ের প্রয়োজনে এসেছি, আবার সময়ের প্রয়োজনে চলে যাব। যত দিন থাকি যশোরের উন্নয়নে নিজেকে নিয়োজিত রাখতে চাই। সব সময় আপনাদের সঙ্গে নিয়ে উন্নয়ন করব। সব সময় গণমাধ্যমকর্মীদের পাশে পাব বলে আশাবাদী।

বুধবার বিকালে জেলা প্রশাসকের সম্মেলনকক্ষে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। নবাগত জেলা প্রশাসকের দৃষ্টি আকর্ষণ করে মতবিনিময় সভায় সাংবাদিকরা বিভিন্ন সমস্যার কথা তুলে ধরেন।

মতবিনিময়কালে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) হুসাইন শওকত, প্রেসক্লাব যশোরের সভাপতি জাহিদ হাসান টুকুন, সাবেক সভাপতি একরাম উদ-দ্দৌলাহ, মিজানুর রহমান তোতা, ফকির শওকত, সহসভাপতি মনোতোষ বসু, সিনিয়র সাংবাদিক কবি ফখরে আলম, সম্পাদক এসএম তৌহিদুর রহমান, যুগ্ম সম্পাদক সাইফুল ইসলাম সজল, যশোর সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি সাজেদ রহমান বকুল, সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান মিলন, প্রতিদিনের কথার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক ফারাজী আহমেদ সাঈদ বুলবুল, বাসসের জেলা প্রতিনিধি সাজ্জাদ গণি খান রিমন, নিউএজ প্রতিনিধি সাইফুর রহমান সাইফ, প্রথম আলো প্রতিনিধি মনিরুল ইসলাম প্রতিদিনের কথার সিনিয়র রিপোর্টার প্রণব দাস, যুগান্তর যশোর ব্যুরো প্রধান ইন্দ্রজিৎ রায়, দৈনিক স্পন্দনের ফটো সাংবাদিক মনিরুজ্জামান মুনির প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

প্রসঙ্গত, গত ২৭ ফেব্রুয়ারি মো. আবদুল আওয়ালের বদলির খবরে কৃষক-শ্রমিক, ছাত্র-জনতাসহ বিভিন্ন পেশার মানুষ ক্ষোভে ফেটে পড়েন ঠাকুরগাঁওয়ের মানুষ। এ আদেশ প্রত্যাহারের দাবিতে লাগাতার কর্মসূচি পালনের ডাক দেয়া হয়েছে। এ ঘোষণার অংশ হিসেবে শহরের চৌরাস্তা মোড়ে জেলা প্রশাসকের বদলির আদেশ বাতিলের দাবিতে দলমত-নির্বিশেষে রাজনৈতিক নেতাকর্মী, ছাত্র-শিক্ষক, অভিভাবক, আইনজীবী, সাংবাদিক, চিকিৎসক, কৃষক-শ্রমিকসহ বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষ মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে।

পরে গণস্বাক্ষর ও বিক্ষোভ করে আন্দোলনকারীরা। এ সময় রাস্তায় বসে ঘণ্টাব্যাপী সড়ক অবরোধ করে রাখে আন্দোলনকারীরা। এতে রাস্তার দুধারে যানবাহন আটকা পড়ে। পরে বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা দুটি গাড়ি ভাঙচুর করে।

LEAVE A REPLY

এখানে কমেন্ট করুন
Please enter your name here